প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সূচনা

প্রথম বিশ্বযুদ্ধ বা গ্রেট ওয়ার এর সূচনা হয়েছিল ১৯১৪ সালের ২৮ জুলাই। দীর্ঘ ৪ বছর ধরে চলা এ যুদ্ধকে সকল যুদ্ধের সমাপ্তি বলে অভিহিত করা হয়। এই যুদ্ধে প্রায় ৭০ মিলিয়ন সেনা অংশ নিয়েছিলো, যা এ যুদ্ধের ভয়াবহতারই প্রমাণ দেয়। শতাব্দীর অন্যতম ভয়াবহ এই যুদ্ধের সূচনা ঘটে অস্ট্রিয়ার যুবরাজ ফ্রাঞ্জ ফার্ডিনান্ডের হত্যার মাধ্যমে। ১৯১৪ এর জুনে আর্চডিউক ফার্ডিনান্ড সার্বিয়া সফরে থাকাকালীন গ্যাব্রিয়েল প্রিন্সিপ এর হাতে মৃত্যুবরণ করেন। এ হত্যাকান্ডে সার্বিয়াকে দায়ী করে অস্ট্রিয়া যুদ্ধ ঘোষণা করে এবং যুদ্ধে এই দুই দেশের পার্শ্ববর্তী দেশসমূহ একে একে জড়িয়ে পড়তে থাকে, আর এভাবেই শুরু হয় প্রথম বিশ্বযুদ্ধ।

প্রথম বিশ্বযুদ্ধে মূলত দুইটি পক্ষ লড়াই করে। এরমধ্যে ট্রিপল এন্টেন্ট বা কেন্দ্রশক্তি ছিল ফ্রান্স, রাশিয়া এবং ব্রিটেন; অপরদিকে ট্রিপল এলায়েন্স বা মিত্রশক্তি হিসেবে ছিল জার্মানি, অস্ট্রিয়া এবং ইতালি। যদিও যুদ্ধে মিত্রশক্তির রক্ষণাত্মক ভঙ্গী ছিল শুরু থেকেই, এর কারণে ইতালি প্রত্যক্ষ যুদ্ধে ১৯১৫ এর এপ্রিল পর্যন্ত অংশ নেয়নি৷ রাশিয়া আংশিক সেনা মোতায়েন করে সার্বিয়াতে এবং ৩০ জুলাই সম্পূর্ণ রাশিয়ান মোতায়েন এর নির্দেশ দেয়। এ সময় জার্মানি রাশিয়াকে ১২ ঘন্টা আল্টিমেটাম দেয়চসেনা হটানোর জন্য কিন্তু রাশিয়া এতে অপারগতা জানালে জার্মানী পহেলা আগস্ট রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ জারি করে। অস্ট্রিয়া-হাংগেরি ৬ আগস্ট জার্মানদের সমর্থন দেয়। অপরদিকে ফ্রান্স ২রা আগস্ট রাশিয়ার পক্ষে যুদ্ধে অংশগ্রহণের ঘোষণা দেয়৷

জার্মানরা যুদ্ধে স্কিলিফেন পরিকল্পনা করেছিল। প্ল্যান মোতাবেক প্রথমে প্রথমে তারা পশ্চিমে ফ্রান্সকে আক্রমণ করে বিপুল সেনা নিয়ে এবং ৬ সপ্তাহে ফ্রান্সের প্যারিসের দখল নিয়ে নেয়। এরপর আবার সম্পূর্ণ সেনা নিয়ে পূর্বে রাশিয়াকে আক্রমণ করে বসে জার্মানি। এরপর জার্মানি বেলজিয়ামের কাছে ফ্রান্স আক্রমণের জন্য সেইফ প্যাসেজ দাবি করে কিন্তু বেলজিয়াম অস্বীকৃতি জানালে জার্মান বাহিনী বেলজিয়ামকে আক্রমণ করে বসে৷ এভাবেই যুদ্ধে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে দেশগুলোতে। ২৩ শে আগস্ট জাপান ব্রিটেনের সাথে যোগ দেয় এবং চীন এর জার্মান কলোনিগুলোতে হামলা চালিয়ে দখল করে নেয়৷ নভেম্বর এর মাঝামাঝি তে অটোমান সাম্রাজ্য কেন্দ্রশক্তির বিপক্ষে যুদ্ধ ঘোষণা করে। এ যুদ্ধ ছিল একের উপর অন্যের ক্ষমতা বিস্তারের। সার্বিয়া-অস্ট্রিয়ার মধ্যে চলমান যুদ্ধ ইউরোপ ছাড়িয়ে আফ্রিকান কলোনিয়াল দেশগুলোতেও ছড়িয়ে পরে।

প্রথম বিশ্বযুদ্ধ ছিল মানব ইতিহাসের জন্য ভয়াবহ এক অভিজ্ঞতা। এ যুদ্ধে প্রায় ১.৫ কোটি মানুষের প্রাণহানি হয় আর অর্থনৈতিক ক্ষয়ক্ষতি তো সীমাহীন৷ প্রথম বিশ্বযুদ্ধ ছিল রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক এবং অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ব্যাপক পালাবদলের প্রভাবক। এই যুদ্ধে এবং যুদ্ধ-পরবর্তী সময়ে বেশ ক’টি বিপ্লব দেখা যায়। এই যুদ্ধে জার্মানি কোণঠাসা হয়ে পরে এবং পরাজয় বরণ করে নেয়৷ ফলশ্রুতিতে কেন্দ্রশক্তির দেশগুলো জার্মানি থেকে ব্যাপক পরিমাণে ক্ষতিপূরণ আদায় করে নেয়। এতকিছুর পরও জার্মানি তার শিল্প-কারখানা সচল রাখতে পেরেছিল৷ ১৯১৪ সালের ২৮ জুলাই শুরু হওয়া প্রথম বিশ্বযুদ্ধের এভাবেই সমাপ্তি ঘটে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

ইতিহাস, রাজনীতি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, খেলাধুলা, বিনোদন সহ সমসাময়িক যেকোন বিষয়ে লেখা পাঠাতে পারেন আপনিও

Latest Articles

কনসার্ট ফর বাংলাদেশ: বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশের প্রথম পরিচিতি

একটি দেশের স্বাধীন হবার পিছে কত কত ইতিহাসই না থাকে। সেই দেশের জনগনের আত্মত্যাগ, তাদের সমস্ত প্রতিরোধ, তাদের সমস্ত অর্জন। কোন কোন

Read More

মাইকেল ফেল্পস: সাঁতারের জীবন্ত কিংবদন্তী

DC সুপারহিরো অ্যাকুয়াম্যানকে সবাই কম বেশি চেনে। বাস্তব জগতেও কিন্তু আছেন এমনই এক জলের নিচের সুপার হিরো। কারো কাছে তিনি বাল্টিমোরের বুলেট,

Read More

বাংলা দেশ: জর্জ হ্যারিসনের অমর সৃষ্টি

বাংলাদেশের মানুষের হৃদয়ের খুব গভীর এক অনুভূতি নাম বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ। যার সাথে আর অন্য কোনো অনুভূতির তুলনা চলে না। মুক্তিযুদ্ধের সময় দেশের

Read More

নাসা প্রতিষ্ঠার ইতিকথা

৬২ বছর আগে, ১৯৫৮ সালের ২৯ জুলাই অর্থাৎ আজকের দিনে আমেরিকায় নাসা প্রতিষ্ঠিত হয়। সংস্থাটি বিজ্ঞানের অগ্রযাত্রায় অন্যতম অগ্রপথিক। পৃথিবীতে যতগুলো স্পেস

Read More

Get Chalkboard Contents straight to your email!​